অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট রক্ষায় করণীয়

গুগল অ্যাডসেন্স Google Adsense অ্যাকাউন্ট রক্ষায় করণীয় কী? কোন কোন কারণে আপনার মূল্যবান অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট গুগল বন্ধ করে দিতে পারে, তা জানুন এবং সতর্ক থাকুন

 

Google-AdSense-গুগল অ্যাডসেন্স

 

গুগল অ্যাডসেন্স Google AdSense অ্যাকাউন্ট পাওয়া যেমন কঠিন, রক্ষা করা তেমনি কঠিন। বিষয়টি এমন যে, স্বাধীনতা লাভ করার চেয়ে যেমন রক্ষা করা কঠিন; গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট এর ক্ষেত্রে কথাটি সমভাবে প্রযোজ্য।

গুগল অ্যাডসেন্স কী?

গুগল অ্যাডসেন্স হলো বিশ্বখ্যাত ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগল এর বিজ্ঞাপন সংস্থা। সংস্থাটি তাদের আরেক সংস্থা অ্যাডওয়ার্ড এর মাধ্যমে সংগ্রহ কৃত বিজ্ঞাপন বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা কনটেন্ট প্রকাশকদের প্রচার করতে অনুমতি দেন। ওয়েবসাইটের মালিক বা কনটেন্ট প্রকাশকরা গুগল অ্যাডসেন্স কর্তৃক প্রদত্ত বিজ্ঞাপন তাদের ওয়েবসাইটের ব্যবহার করে অনলাইনে অর্থ আয় করতে পারে।

গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট কী?

গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট হলো অ্যাডসেন্স কর্তৃক প্রদত্ত বিজ্ঞাপন প্রচারের অনুমতি লাভের অ্যাকাউন্ট। বিশ্বের বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মালিক বা প্রকাশকরা অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন লাভের জন্য সংস্থাটির পলিসি অনুসরণ করে আবেদন করেন। কোন ওয়েবসাইট বা প্রকাশক যদি গুগল অ্যাডসেন্স এর সকল নীতিমালা ও টার্ম অফ কন্ডিশন পূরণ করে, তাহলে সে ওয়েবসাইট বা প্রকাশককে বিজ্ঞাপন প্রচারের অনুমতি দেন। গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট লাভের পর কোন ওয়েবসাইটের মালিক বা প্রকাশক তাঁর ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রচার করতে পারেন। বিজ্ঞাপন প্রচারের ফলে তিনি কিছু আয় করতে পারেন। যদি কোন ওয়েবসাইট বা প্রকাশকের ব্যাপক সংখ্যক পাঠক থাকে, তাহলে তিনি মাসে হাজার থেকে লাখো ডলার আয় করতে পারেন।

গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট রক্ষায় করণীয় কী কী?

আগেই বলেছি, গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট পাওয়ার চেয়ে তা রক্ষা করা বেশ কঠিন। তবে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট নিরাপদ করা যায়। সব সময় AdSense Program policies এর সকল শর্তের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে এবং তা যথাযথ মান্য করতে হবে। ওয়েবসাইট নির্মাণ সহ কন্টেন্ট প্রকাশের ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয়গুলোর প্রতি খেয়াল রাখতে হবে-

ওয়েবসাইট ডিজাইন: গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট লাভের জন্য ওয়েবসাইটের ডিজাইন একটি বড় ব্যাপার। ওয়েবসাইটের ডিজাইন এমন হতে হবে যে, পাঠক গণ যাতে সহজে কনটেন্ট পড়তে ও দেখতে পারে। ওয়েব ডিজাইন হতে হবে এসইও ফ্রেন্ডলি। ওয়েবসাইট নির্মাণের ক্ষেত্রে সাইটের উপাদানগুলো যেন পাইরেটেড না হয় সেদিকে খেয়াল রাখুন। বর্তমানে যেহেতু মোবাইলে বেশীরভাগ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে, তাই সাইটটি মোবাইল সহায়ক করুন। বেশী রং বা উদ্ভট ডিজাইনের দিকে বেশী মনোযোগী না হয়ে, ইউনিক কন্টেন্ট এর দিকে বেশী মনোযোগ দিন। ওয়েবসাইটের পেজ লোড এর দিকে খেয়াল করুন। পেজ লোড হতে দেরী করলে অনেক পাঠকই রিরক্ত হন। যার ফলে আপনার সাইটের পেজ ভিউ কমে গিয়ে অর্থ কম আয় হতে পারে।

ইউনিক কন্টেন্ট: ইন্টারনেটে প্রচলিত আছে ‘কন্টেন্ট ইজ কিং’। কথাটির অর্থ হলো, একটি ওয়েবসাইটের প্রধান বিষয় হলো কন্টেন্ট। গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট এর মাধ্যমে বেশী বেশী আয় করতে হলে প্রয়োজন ইউনিক কন্টেন্ট। ইউনিক কন্টেন্ট যেমন আপনাকে বেশী আয় দিতে পারে তেমন আপনার অ্যাকাউন্টটির নিরাপত্তাও দিতে পারে। ইউনিক কনটেন্ট এর বদলে যদি কপি-পেস্ট কনটেন্ট দ্বারা আয় করার কথা চিন্তা করেন, তাহলে ভুল করবেন। কারণ, গুগল কপি-পেস্ট বা অন্য ওয়েবসাইটে প্রকাশিত লেখাগুলো সনাক্ত করতে পারে। তাই ওয়েবসাইটের প্রকাশিত লেখা, ছবি, ভিডিও বা অন্যন্য কনটেন্ট এর ব্যাপারে সচেতন থাকুন। এ বিষয়ে গুগল অ্যাডসেন্স এর Content policies ভালো ভাবে পড়ে নিন। মনে রাখবেন আপনার অসচেতনতা ও সামান্য ভুলে আপনার মহামূল্যবান অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টটি বাতিল হয়ে যেতে পারে।

Adult content পর্নোগ্রাফি বা বয়স্কদের কন্টেন্ট: গুগল অ্যাডসেন্স পর্ণোগ্রাফী বা বয়স্কদের কন্টেন্টে বিজ্ঞাপন প্রচার করে না। আপনার ওয়েবসাইটে যদি বয়স্কদের কন্টেন্ট থাকে বা প্রকাশ করেন, তাহলে গুগল আপনার সাইটে বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করে দিবে। এছাড়া যৌন সহিংসতা, আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারী লেখা সহ অণ্যান্য বিষয়গুলোতে সতর্ক থাকুন। Adult content কী এবং গুগল অ্যাডসেন্স তাদের Content policies তে কোন কোন বিষয়গুলোকে পর্নোগ্রাফি বা বয়স্কদের কন্টেন্ট হিসাবে সনাক্ত করেছে তা ভালোভাবে পড়ে নিন।

ঘৃণা, বিদ্বেষ ও ভীতিকর কন্টেন্ট: গুগল অ্যাডসেন্স সকলের মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। তবে এমন এটা মনে রাখতে হবে যে, আপনার স্বাধীনতা যেন অন্যের স্বাধীনতা খর্ব না করে। আপনার লেখা যদি অন্য কোন ব্যক্তি, গোষ্ঠী, জাতি, ধর্ম, বর্ণ, লিঙ্গের প্রতি অবমাননাকর বা ভীতিজনক বা বিদ্বেষপূর্ণ হয় তাহলে আপনি বিপদে পড়তে পারেন। আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে এমন কন্টেন্ট প্রকাশিত হলে, আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ঝুঁকির মধ্যে পড়তে পারে। এমন ঝুঁকি এড়াতে গুগল অ্যাডসেন্স এর Content policies ভালোভাবে পড়ে নিন।

অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন প্লেসমেন্ট: আপনার ওয়েবসাইটের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন রাখাতে ভালো আয় দিতে পারে। আবার বেশী বেশী বিজ্ঞাপন ব্যবহার, আপনার জন্য ক্ষতির কারণও হতে পারে। গুগল অ্যাডসেন্স কর্তৃপক্ষ প্রতিটি পাতায় তিনটির বেশী বিজ্ঞাপন দেওয়া পছন্দ করে না। বেশী আয়ের আশায় বেশী বেশী বিজ্ঞাপন ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। গুগল নির্দেশীত নীতি অনুসরণ করে নির্দিষ্ট মাত্রায় বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করুন।

অবৈধ ক্লিক: গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট বাতিলের কারণ হিসাবে বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি নিজে যদি নিজের সাইটের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করেন তাহলে তা হবে অ্যাডসেন্স নীতিমালা বিরোধী কাজ। এর ফলে আপনার অ্যাকাউন্ট বাতিল হয়ে যেতে পারে। নিজে না করে যদি অন্যকে দিয়েও বিজ্ঞাপনে ক্লিক করান তাহলেও আপনার অ্যাকাউন্ট বাতিল হতে পারে। তাই অবৈধ ক্লিক করা বা করানো থেকে বিরত থাকুন।

বিষয়টি সম্পর্কে আরো ভালোভাবে জানতে Google Adsence Content policies ভালো করে পড়ে নিন এবং বিষয়গুলোতে সব সময় সতর্ক থাকুন।

গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে আরো জানার থাকলে, নিচের মন্তব্যের ঘরে আপনার প্রশ্নটি করুন।

মন্তব্য করুন